সম্ভবনার দিকে যাত্রা- ব্লগিং নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা

আমরা মোটামুটি সবাই ব্লগের সাথে পরিচিত। ব্লগ হচ্ছে এমন একটি ওয়েব সাইট যেখানে লেখক যে কোনো বিষয়ে তার মতামত সরাসরি প্রকাশ করতে পারে। ব্লগের লেখকদের বলা হয় ব্লগার। বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে ব্লগ নানান রকমের হতে পারে। যেমন খেলাধুলো বিষয়ক ব্লগ, সিনেমা-সঙ্গিত বিষয়ক ব্লগ, গল্পের ব্লগ ইত্যাদি।

ইদানিং টাকা আয়ের অন্যতম মধ্যম বলে ব্লগ তৈরী করা রীতিমত হট টপিকে পরিনত হয়েছে। অনেকেই ব্লগ তৈরী করছে টাকা আয় করার লক্ষ্যে। কেউ কেউ সফল হচ্ছে, আবার তেমনি কেউ কেউ ব্যর্থতার স্বাদ পাচ্ছে।

স্রেফ শখের বশত ব্লগ তৈরী করেছে এমন পাবলিকের সংখ্যাও কিন্তু কম নয়। সফলদের মধ্যে বরং এদের সংখ্যাই বেশি। সফলতা যখন আসে তখন অনেক ব্লগারই তাদের শখের ব্লগকে আয়ের উৎসে রূপান্তরিত করে ফেলে।

তো ব্লগ আর ব্লগার নিয়ে কথা বললে কথা বাড়তেই থাকবে। আমরা অত কথায় যাব না। বরং আজকের এই আর্টিকেলে আমি সংক্ষিপ্ত ভাবে ব্লগ তৈরীর মূল বিষয়গুলো বলব। খুব ভাল না লাগলেও আশা করি একেবারে খারাপ লাগবে না।

Image

ব্লগ এবং ব্লগার

লেখার শুরুতেই আমি ব্লগ এবং ব্লগার নিয়ে কথা বলেছি। ব্লগ হলো এমন একটি ওয়েব সাইট যেখানে নির্দিষ্ট বিষয়ে কোনো ব্যক্তি নিজের মতামত প্রকাশ করবে। শুধু মতামতই যে প্রকাশ করতে পারবে তাই নয়, লেখক যে কোনো বিষয়ে তার লেখা প্রকাশ করতে পারবে। ব্লগ হলো নিজের লেখা প্রকাশ করার স্বাধীন মাধ্যম।

ব্লগের লেখকদের বলা হয় ব্লগার। আজকাল ব্লগারদের সাংবাদিকদের সাথে তুলনা করা হয়। আইটি সেক্টরে তাদের সম্মানের পরিমানটা তাই অনন্যদের চেয়ে কোনো অংশেই কম নয়।

ব্লগের প্রকারভেদ

সাধারনত নিজের পছন্দের ওপর ভিত্তি করে ব্লগার ব্লগ তৈরী করে। তবে অনেক ব্লগই ব্যবসায়ীক উদ্দেশ্যে তৈরী হয়। সেইসব ব্লগের উদ্দেশ্যই থাকে নিজেদের ব্যবসা প্রসার করা অথবা ব্লগ থেকে সরাসরি টাকা উপার্জন করা।

বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে ব্লগকে নানান ভাগে ভাগ করা যায়। উদ্দেশ্যের ওপর ভিত্তি করে ব্লগ মোটামুটি দুই প্রকার। যথা: ব্যবসায়ীক ব্লগ এবং ব্যক্তিগত আগ্রহ বিষয়ক ব্লগ।

কেন ব্লগিং

ব্লগ তৈরী করাটাই ব্লগিং। এখন প্রশ্ন হলো ব্লগিং কেন করব?

ব্লগ তৈরী করে আয় করার ব্যাপারটার সাথে আমরা সবাই পরিচিত। বেশিরভাগ সময়ই ব্লগ তৈরী করা হয় টাকা কামানোর উদ্দেশ্যে। একটি সফল ব্লগ থেকে মাসে ত্রিশ থেকে চল্লিশ হাজার টাকা আয় যায়। তবে তার জন্য ব্লগটাকে আগে সফল ব্লগে পরিনত করতে হবে।

যদি নিজের আগ্রহের বিষয় সম্পর্কে এই পৃথিবীকে জানাতে চান তাহলে ব্লগিং হতে পারে শ্রেষ্ঠ মাধ্যম। এছাড়াও ব্যবসায়ীক প্রচারের কাজে ব্লগিয়ের ইতিহাস খুবই পুরোনো।

খরচ কেমন

ব্লগিং করার জন্য অনেক ফ্রি প্লাটফর্ম আছে। যেমন গুগলের ব্লগস্পোট, ওয়ার্ড প্রেস ইত্যাদি। এগুলোতে বিনামূল্যে ব্লগিং করা সম্ভব। তবে প্রফেশনাল ব্লগিয়ের জন্য হোস্টিং কিনে নেয়া ভাল। সাধারনত মাসে দুই থেকে তিনশো টাকা খরচ করলেই ভাল হোস্টিং সার্ভিস পাওয়া যায়।

হোস্টিং কিনে ব্লগ তৈরী করার জন্য স্ক্রিপ্টের প্রয়োজন হয়। অনলাইনে অনেক স্ক্রিপ্ট ফ্রিতেই পাওয়া যায়। সেগুলোর মান খারাপ এমনটা ভাবার কোনো মানেই নেই। ওয়ার্ড প্রেস একটি ফ্রি ব্লগিং স্ক্রিপ্ট যেটা দিয়ে ইন্টারনেটের ২৫% এরও বেশি ওয়েবসাইট তৈরী করা হয়েছে।

ডোমেইন হচ্ছে ব্লগের মৌলিক বৈশিষ্ট্য। একটি ডট কম ডোমেইনের জন্য মাসে কমপক্ষে একশো টাকা গুনতে হবে। ডট নেট, ডট ওয়ারজি, ডট সিসি ইত্যাদি ডোমেইনের প্রাইজ ভিন্ন ভিন্ন। তবে যদি ডোমেইনের পেছনে খরচ না করতে চান তাহলেও কোনো সমস্যা নেই। বিভিন্ন ব্লগিং প্লাটফর্ম ফ্রিতেই অনেক সাব ডোমেইন দেয়া থাকে। আবার অনেক ডোমেনই ফ্রিতে পাওয়া যায়।

একটি আদর্শ ডোমেইন: www.example.com
একটি ফ্রি সাবডোমেইন: www.example.blogspot.com
একটি ফ্রি ডোমেইন: www.example.tk

এছাড়াও ট্রাফিক আনতে, এসইও করাতে, ডিজাইনিংয়ের পেছনেও কিছু খরচ করতে হবে।

কতটা সময় দিতে হবে

অতি ব্যস্ত মানুষরা কখনও সফল ব্লগার হতে পারে না। তাই বলে ব্লগিং করতে হলে যে দিনের পুরোটা সময়
দিতে হবে এমন কোনো কথাও নেই। শুরুর দিকে ব্লগের পেছনে প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই ঘন্টা দিতে হবে। তবে পরে সময়টা ধীরে ধীরে কমে আসবে।

একটি পোষ্ট লিখতে মোটামুটি ঘন্টাখানিক লাগে। সে হিসেবে সপ্তাহে যদি তিনটা পোষ্ট লেখা হয় তবে তিন ঘন্টা লেখালেখির কাজে ব্যয় করতে হবে। পাশাপাশি রিসার্চের কাজেও কিছু সময় ব্যয় করতে হবে।

সফলতা

ব্লগিংয়ে সফলতা শব্দটি খুবই দামি। সফল হতে হলে প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে। পাশাপাশি থাকতে হবে ধৈর্য। আর অবশ্যই থাকতে হবে ইচ্ছে শক্তি। এগুলোর মিলিত রূপ যে সফলতাই হবে এমনও কোনো কথা নেই। তাই ব্যর্থতার জন্য সর্বদা প্রস্তুতও থাকতে হবে।

ব্লগিং শুরু করার পর অনেকেই তেমন একটা সাড়া পায় না। তাই কয়েকমাস পরই ব্লগের অকাল মৃত্যু ঘটে। সফলদের ইতিহাস ঘাটলে দেখা যাবে তারা সফল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে ব্লগ তৈরীরও কয়েক বছর পরে। সুতরাং এখানে উৎসাহ হারিয়ে ফেললে চলবে না।

উপসংহার

ব্লগিং করে সফল হওয়া অনেকেই স্বপ্ন। তবে এই স্বপ্নকে পূরণের যাত্রাটা অনেক লম্বা এবং সংকুল। তবে যদি সঠিক নিয়মে সঠিকভাবে শুরু করলে সফলতা পাওয়ার সম্ভবনা অনেক বেশি।

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
1
4 Comments
  1. mdasrafulislam
  2. Anik Ahmed
  3. Aj Milon Khan

Add a Comment